অফিসে ঢুকে পঞ্চায়েত কর্মচারীকে মার ! আখেরীগঞ্জে তৃণমূল কর্মাধ্যক্ষের স্বামী, দেওরের বিরুদ্ধে অভিযোগ

মধ্যবঙ্গ নিউজ ডেস্কঃ গ্রাম পঞ্চায়েতের অফিসে ঢুকে পঞ্চায়েতের এক্সিকিউটিভ অ্যাসিস্টেন্ট, পঞ্চায়েত কর্মচারীকে মারধরের অভিযোগ  উঠল ভগবানগোলার আখেরীগঞ্জে।  ভগবানগোলা দুই নম্বর পঞ্চায়েত সমতিরি খাদ্য কর্মাধ্যক্ষের স্বামী সোহেল রাণা  ও স্বামীর ভাই ফিরোজ হোসেনের  বিরুদ্ধে মারধরের অভিযোগ উঠেছে সোমবার সকালে।

পঞ্চায়েত আধিকারিকের  চেম্বারে ঢুকে  পঞ্চায়েত কর্মীকে হেলমেট তুলে মার, কলার ধরে চলে  ঘুষি । ফিরোজ হোসেন নামের এক যুবক চড়াও হন পঞ্চায়েত কর্মচারীদের উপর। সেই সময় ঘরে ছিলেন গ্রাম পঞ্চায়েতের উপ প্রধানও ।

আখেরীগঞ্জ গ্রাম পঞ্চায়েতের কর্মীচারী  মোহাম্মদ রায়হান আলীকে ও তোজাম্মেল হক’কে  মারধর করা হয় বলে অভিযোগ। ঘটনায়  ফিরোজ হোসেনকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে রানিতলা থানার পুলিশ । ঘটনায় রানীতলা থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে ।

পঞ্চায়েত সূত্রে জানা গিয়েছে, এদিন গ্রাম পঞ্চায়েতে আসেন ফিরোজ। ইনকাম সার্টিফিকেট নিতে এসেছিলেন তিনি। সাথে ছিল পরিবারের সদস্যরা। ফিরোজের ইনকাম সার্টিফিকেট দেওয়ার আগে তথ্য যাচাই করতে চান পঞ্চায়েত আধিকারিকরা। এতেই বাধে বিতন্ডা। পঞ্চায়েতের আধিকারিকের টেবিল থেকে হেলমেট তুলে তাঁকে মারতে যান ফিরোজ। সেই সময়ে ঘরে ঢুকে পরেন ফিরোজের পরিবারের সদস্যরা। সকলে মিলে পঞ্চায়েত কর্মচারীদের উপর চড়াও হন বলে অভিযোগ। পঞ্চায়েত কর্মচারীদের হেনস্থার অভিযোগ উঠেছে  পঞ্চায়েত সমতির কর্মাধ্যক্ষের তুহিনা’র স্বামী সোহেল রাণার বিরুদ্ধেও ।

ঘটনায় রানিতলা থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন গ্রাম পঞ্চায়েতের আধিকারিকরা। ঘটনাস্থল থেকে ফিরোজ হোসেনকে গেফতার করেছে রানিতলা থানার পুলিশ।